পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छूटोब अशक्र!-छवि । 8ዓ همسایتهای جعبهای ভজিবে ) স্বজীর দ্বারা মাখিবার পূৰ্ব্বে বড় মৎস্ত হইলে তাহ অপক্ষাকৃত পুরু ও বড় বড় খণ্ডে কুটিয়া লইয়া একখানা ভারী গোছের ছুরি বা কাটারী অথবা কাঠের হাতুড়ী বা তদ্বৎ কোনও অস্ত্রের দ্বারা একটু খুরিয়া বা ছেচিয়া লইবে । পাটর উপর মৎস্ত খণ্ড রাখিয়া শিলের দ্বারাও বেশ ছেচিয়া লওয়া চলিতে পারে। তৎপর তাহাতে মুণ, (হলুদ ), মরিচ গুড়া ( অথবা লঙ্কা বাটা ), আদা বাটা বা রস এবং রুচী অনুসারে পেয়াজ বাটা বা রস মাখিবে । কেহ কেহ এই সঙ্গে কিছু অন্নরস যথা—লেবুর রস, তেতুল গোলা, অথবা দধি প্রভৃতি মিশাইয়া থাকেন। কিছুক্ষণ ঢাকিয়া রাখিলে ঝাল মুণ, মাছের ভিতরে প্রবেশ করবে। * এখন একখানা রেকবীতে কাটখোলাষ্ট্র চমকান ময়দা, সুজী বা ক্রাস্বরুটার গুড়া বাখিয়া ঐ ঝালে মুণে মাখা আঁছ তাহার উপর ফেলিয়া উলটাইয়া পালটাইয়া মাছের গায়ে ময়দ, স্বজী বা ক্রান্ধকটার ১ওঁড়া লগাইয়া বা মাখিয়া লও, অতিরিক্ত স্বজী হাতে ঝাড়িয়া ফেল । অতঃপর তৈয়ে করিঃ উত্তপ্ত রতে ভাজ। কড়াই অপেক্ষ তৈয়ে ভাজিলে সুবিধা કરું হয় যে অল্প বৃতে এবং অল্প সময়ে অধিক মাছ ভাজা যায়। মাছ বেশ তাজা ও টাটক। ন হইলে তাহার ‘সুজী-ভাজা’ বড় সুবিধা হয় না । (ক) কই মাছ—অপেক্ষাকৃত পুরু ও বড় বড় পণ্ডে কুটিয়া লও। পেট অপেক্ষা গাদার মাছেই এই ‘সুঞ্জী ভাজা” উত্তম হয় । ( ইউরোপীয়গণ মাছের মুড়। ফিছা কাটিয়া ফেলিয়া লম্বালম্বি ভাবে শিরদাঁড়ার উভয় পাশ্ব দিয়া বড় বড় দুই ফালটার মাছ বিভক্ত করিয়া লয়েন, তৎপর প্রত্যেক ফালটা আবার আড়ভাবে তিন অকুলী পরিমিত চওড়া চওড়া খণ্ডে কুটিয়া লয়েন। প্রতি খণ্ডে গাদা,পেটা উভয়ই থাকে। ) এক্ষণে এই মৎস্ত থও গুলি একটু খুরিয়া বা ছেচিয়া লও। মুণ, (হলুদ), মরিচ ওড়া, (পাকা রুইয়ে একটু লঙ্কা বাটাও দেওয়া যাইতে পারে), আদা বাট বা রস এবং