পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/১১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S8 বিভূতি-রচনাবলী g যতীন খানিকক্ষণ কি ভাবলে, তারপর বল্লে—বোসে পুষ্প, দেখে আসি মা কি করচেন— পুষ্প ধমক দিয়ে বল্লে—কে মা ? কিসের মা ? ৰৈষ্ণবী মায়ায় ভুলো না। অনন্ত পথে কত মা, কত বাবা, কত ছেলে, কত স্ত্রী। প্রত্যেকেই অবিনাশী আত্মা, প্রত্যেকেই লীলা করচে। চলো— —না পুষ্প, আমার সত্যিই এখনো তোমার মত জ্ঞান জন্মায় নি মনে। এখনো মায়া-দয়া মন থেকে একেবারে বিসর্জন দিতে পারিনি । তোমাদের ব্ৰহ্মজ্ঞান নিয়ে তোমরা থাকো—আমি ওর মধ্যে নেই, সত্যি বলচি । আমাকে যেতেই হবে মাকে দেখতে । আজ সকালে মার সেই বুকফাটা কান্না আমারই জন্যে, সে অামি ছেলে হয়ে কি করে ভূলি ? 彎 পুষ্প মৃদু হেসে একটু ধীরভাবে বল্লে—উঃ, কি বাধন, তাই দেখচি ! মায়ার শক্তি আছে বটে । এড়ানো বল্লেই কি এড়ানো যায় ? মাহুবকে নিয়ে পৃথিবীর লীলা ত হোলে হয় কি করে ! পরে সে হঠাৎ স্বস্বরে গেয়ে উঠলো দুটো মাত্র কলি— "এ বাধন বিধির স্বজন, মানব কি তায় খুলতে পারে ? কারাগার ভাঙতে কি পারে, ও যে মায়ার পাচিল আছে ঘিরে ? যতীন ব্যঙ্গের স্বরে বল্লে—থাক্, থাক, ব্রহ্মবিস্তে এখন তুলে রেখে দাও, ওসব সইবে না ধাতে । 鱗 পুষ্প হেসে বল্লে—কেমন গলা, যতীনদা ? —চমৎকার ! -—ত এখন মার কাছে না গিয়ে এর পরে যেও । —আমি একবার দেখে আসি, বোসো—. * আবার সেই কোলা-বলরামপুর গ্রাম । বেলা দুপুর । বৃষ্টি থেমেচে, কিন্তু আকাশ মেঘমেদুর । সজল বর্ষার বাতাস বইচে, সারারাত্রি বর্ষণের ফলে পথে-ঘাটে জল দাডিয়েচে । বৃষ্টিসিক্ত লতাঝোপের পত্রপুঞ্জ থেকে টুপটাপ বৃষ্টির জল ঝরে পড়চে এখনও । রান্নাঘরের দাওয়ায় মেয়েটি খেতে বলেচে । কলাইয়ের দাল, মোচা ছেচকি আর র্কাচকল ভাজা । সকালবেলার সেই প্রৌঢ়াও পাশে বসে খাচ্চে। সে খেতে খেতে বল্পে—একটু ভাল দেবোৰে ? • . 蠍 —না, আমি আর কিছু থাবো না মালী। যা খেয়েচি সকালবেলা, পেট ভরে গিয়েচে— —ছি, অমন কথা বলতে নেই বোঁ, আবার কোলজোড় ছেলে পাবে, হাতের নোৱা সিথির সিদুর বজায় থাক্। মেয়েটি ভাত খাওয়া ছেড়ে হাত তুলে বল্লে—কি মুখ চোখের ছিরি, মাসী—ও যে র্বাচবে না সে আমি জানি—আমার কপালে কি আমন ছেলে বঁাচে । সেবার কিসে কামড়ালে রাত্তিরে, ছেলে ককিয়ে কেঁদে উঠলো, আমি তাড়াতাড়ি টেমি জেলে দেখি ছেলের কাথার তলায়