পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/১৪৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দেবযান ծՀ(t পুপ হঠাৎ হাট গেডে বসে পডলো, দেখাদেখি যতীনও । এই মনোরম জগতের নৈশ সৌন্দর্যের মধ্যে উচ্চ স্তরের এট পথিক দেবতার বাণী স্বয়ং ভগবানের প্রতিনিধির বাণী বলে মনে হোল হঠাৎ ওদের মনে । সুস্পষ্ট সত্য বাণী—চন্দ্রমা অস্তমিত হোলে, বা শাস্ত হোলে, পৃথিবীর ঋষি যাজ্ঞবন্ধ্যের আশ্রমে যেমন একদিন বাণী উচ্চারিত হয়েছিল। পুষ্প মাথা নীচ করে বল্লে—আশীৰ্বাদ করুন দেব— ওর অশ্রশ্লাবিত চোখ দুটির দৃষ্টি নতুন গ্রহের মৃত্তিকার দিকে আবদ্ধ রইল । দেবতা বল্লেন --আশীর্বাদ করচি কন্যা, তুমি আমার অপেক্ষ অনেক উচ্চস্তরের দেবআত্মার সাক্ষাৎ পাবে। আমি ভবঘুরে মাত্র। সত্যিকার জ্ঞানীর দর্শন পাবে। তবে তোমার ভাগ্যে এখনও অনেক সংগ্রাম আছে। কিন্তু তুমি বিশ্বদেবের করুণা লাভ করবে। আমি যাদের পাদস্পর্শ করবার যোগ্য নই, এমন আত্মার দর্শন পেয়ে ধন্য হবে । এমন সময় রাত্রি প্রভাত হয়ে এল সেখানকার বনে-বনানীতে । আকাশের নক্ষত্ররাজি স্নান হয়ে এল—সার্থী তারার নীল জ্যোৎস্না মিলিয়ে অস্পষ্ট হয়ে এল। পক্ষী-কুজন জেগে উঠলো বনভূমির বুকে । পুষ্প ভাবছিল, কোনো এক মুদূর জন্মান্তরে এই গ্রহলোকে যদি সে জন্ম নেয়, সাথী তারার নীল জ্যোৎস্নায় এরই শৈলারণ্যে, উপত্যকায়, গিরিসাম্রদেশে, শান্ত উপত্যকায় সে হাত-ধরাধরি করে বেড়াবে যতীনদার সঙ্গে—দুজনে মিলে ভগবানের উপাসনা করবে সারাজীবন এই তপোবনসম গ্রহলোকের পবিত্র আশ্রয়ে, কোনো গিরিনিঝরিণীর কুলে কুটার বেঁধে । জগতের বিশাল পথে ঘুরতে ঘুরতে কবে এখানে এসে হয়তো পড়তে হবে, তা কেউ জানে কি ? মহাপুরুষের আশীর্বাদ বৃথা যাৰে না । দেবতা ৰল্লেন—চলো, এখুনি লোকে জেগে উঠবে। এরা আমাদের হয়তো দেখতে পাবে —এদের ক্ষমতা বেশি। তোমাদের তো নিশ্চয় দেখতে পাবে। সরে পড়ি তার আগে। ওদের বুড়োশিবতলার ঘাটে পৌছে দিয়ে পথিক দেবতা পুষ্পের চোখের জলের মধ্যে অদৃষ্ঠা হোলেন । তার অনুনয় ও অনুরোধের উত্তরে বলে গেলেন, সময়ে আবার দর্শন দেবেন । ১৭ বুড়োশিবতলার ঋটে আজ দীপান্বিত অমাবুঙ্গ। ওপারে হালিসহরের তামাসুন্দরীর ঘাটে মন্দিরে মন্দিরে ছাদে ছাদে প্রদীপ দিয়েচে মেয়েরা । এদের প্রাচীন ঘাটের রানায় পুপ নিজের হাতে ছোট ছোট মাটির প্রদীপ জেলেচে । গঙ্গাবক্ষ অন্ধকার, দু-একটা নোঁকোর ক্ষীণ আলো দেখা যাচ্চে—ছপ, ছপ, দাড়ের শব্দও পাওয়া যাচ্চে । পুষ্প বল্লে –এসো যতীনদা, আমরা আমাদের ছেলেবেলার কথা ভাবি বসে বসে। মনে পডে কেওটা-সাগল্পের দিন ? আমি পিদিম দিচ্চি, তুমি এক পয়সার কুচে গঙ্গা কিনে আনলে— —কুচো গজা না জিবে গজা—