পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৩৩৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Also বিভূতি-রচনাবলী আমরা আর একটি জিনিস লক্ষ্য করিলাম। ফোর্থ ইয়ারের ছাত্র বটে, কিন্তু ‘মূলো’র বিজ্ঞাবুদ্ধির দৌড় বিশেষ নয়, একজন ভাল বাঙালী ম্যাটিক ছাত্র তাহার অপেক্ষ অনেক কিছু জানে। বলা বাহুল্য অবাঙালী ছাত্রদের সম্বন্ধে আমাদের ধারণ স্বভাবত খুব উচ্চশ্রেণীর নয়। কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় আর নাগপুর বিশ্ববিদ্যালয় ? রামো, এখানে মাহুৰ আছে কে ? আমাদের এই মনোভাবের পটভূমিকায় আসিয়া উপস্থিত হইলে মূলোর গল্প একজন স্থূলবুদ্ধি ছাত্রের যে দুর্দশ এরূপ দাডাক্টবে আমাদের বিচারের মাপকাঠিতে ইহা অার বেশি কথা কি ! মজার ব্যাপার এই, যাহাকে লইয়া এই ব্যাপার সে কিছুই বুঝিউ না। বরং ভাবিত, আমাদের মত অমায়িক বাঙালী ভদ্রলোকেদেব সঙ্গে ঘনিষ্ঠ বন্ধুত্বহুত্রে আবদ্ধ হইয়। সে লাভবান হইয়াছে। এজষ্ঠ সে মাঝে মাঝে গৰ্ব্বও করিত । মূলোর মুখে শুনিয়াছিলাম ম্যাঙ্গানিজ খনির ম্যানেজারের সঙ্গে তার আলাপ আছে। গাড়ী জব্বলপুর রোডের উপর খনির সামনে দাড়াইতেই সে দোর খুলিয়া ছুটিয়া গেল ম্যানেজারকে খবর দিতে। যেন আমরা লাট সাহেব আসিয়াছি মানসারের ম্যাঙ্গানিজ খনি দর্শন করিতে—এমনভাবে সে হস্তদন্ত অবস্থায় আমাদের সঙ্গে পরিচয় করাইয়া দিল । ইনি মিঃ বোস, ইনি মিঃ রায়—বাঙালী, খুব পণ্ডিত লোক এরা দুজনেই। আমার বিশেষ বন্ধু – কি মুশকিল ! পাণ্ডিত্যের মধ্যে তো আমরা করি ইনসিওরেন্সের দালালি ! অবশু আমাদের প্রাচীন কীৰ্ত্তি ও পুরাতত্ত্বের ওপর কিছু ঝোক আছে—কিন্তু সে ফটোগ্রাফির দিক হইতে, বিদ্যা বা পাণ্ডিত্যের দিক হইতে নয়। মুলোর কাও দেখিয়া আমরা মনে মনে কৌতুক অনুভব করিলাম। ম্যানেজার নাগপুরের লোক, ছিন্দওয়ারা জেলার অধিবাসী, বেশ ইংরেজি বলে। জব্বলপুর রোডে গাড়ী দাড় করাইয়া আমরা প্রায় দু শ ফুট চড়াই ভাঙিয়া খনির মুখে গিয়া পৌছিলাম। একটা ক্ষুদ্র ডনকি এঞ্জিনে খাদের জল তুলিয়া লম্বা রবার ও তারের নল দিয়া পাহাড়ের পাশ দিয়া ফেলিয়া দেওয়াতে ছোটখাটো একটা জলপ্রপাতের স্বষ্টি হইয়াছে—সেটা দেখিয়া আমরা সকলে খুশী হইলাম। ম্যানেজার আমাদের চা পান করিতে বলিলে আমরা অস্বীকার করিয়া আবার নীচে নামিয়া আসিয়া মোটরে উঠিলাম। ম্যানেজারকে যথেষ্ট ধন্যবাদ দিলাম, কষ্ট করিয়া আমাদের সব দেখাইবার জন্য । গাড়ী পুনরায় চলিল । নবীমদ কহিলেন—মূলে বজ্ঞগণ্ডগোল করে। আমাদের নিয়ে এমন করছিল... ! * মূলো জিজ্ঞাসা করিল—কি, মিঃ বোস ? তাহার জাবার সকল কথারই মানে জানা চাই । নবীন্দ্ৰ বলিলেন,—চমৎকার খনিট, তাই বলছিলাম। - --৭৪ ত স্ন্যাডিশের কথা কি বলছিলেন । এখানে তে র্যাডিশ পাওয়া যায় মা !