পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৩৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিধু মাস্টার 8సి পঞ্চাশেক টাকা পেনশন পান বলিয়া দেশে আছেন, নতুবা কলিকাতায় বাসা করিতেন। বলিলাম—তুমি কি এই তিন বছরই এখানে আছ ? * —হ্যা দাদা। হোয়ার গুলি আই গো ? এখন চাকরি নেই কিনা। তবে শীগগিরই হবে। —বেশ বেশ, খুব ভাল। তোমাদের দেশ কোথায় ? —দেশ ছিল ক্যালকাটার পাশেই—ইয়ে রাজবল্লভপুর, টালিগঞ্জের ওদিকে। এখন সেখানে কেউ নেই। মা এখানেই থাকেন, দিদি আছেন। আমিও এখানেই এখন আছি, তবে আই হোপ, এই মার্চ মাসেই আই উইল সিকিওর এ সর্ভিস। আই অ্যাম এ ম্যাটিক পাসড় । —বা, খুব ভাল । ছোকরার সঙ্গে কথাবাৰ্ত্তা বলিতে বেশ একটু কৌতুক বোধ করিতে লাগিলাম। বেশ চেহার, মাথায় চেরা সিথিটি যত্নে তৈরি করা, পরনে আধময়লা ধুতি, গায়ে গেঞ্জি, বোধ হয় কিছুক্ষণ আগে বিড়ি টানিতেছিল, আমায় দেখিয়া ফেলিয়া দিয়াছে, কারণ বিডির ধোয়ার গন্ধ বাতাসে I • —আপনি বুঝি সার, ক্যালকাটাতেই— —হঁ্যা, আমার কৰ্ম্মস্থান কলকাতাতেই ছিল, স্কুলে মাস্টারি করতাম। এখন স্কুল সব বন্ধ, তাই এখানে— —আপনি কি পাশ সার ? —এম এ পাশ করেছিলাম । ছোকরা বিনয়ে সন্ত্রমে কঁচুমাচু হইয়া বলিল—দেন ইউ আর এ কালচার্ড ম্যান সার—ভারি খুশী হলাম আপনার সঙ্গে আলাপ হয়ে । আই অ্যাম ওনলি ম্যাটিক পাসড়–কিন্তু দেখুন সায়, লেখাপড়া আমি বড় ভালবাসি । —সে তো খুব আনন্দের কথা। ভদ্রলোকের ছেলে, হবারই তো কথা । —প্রেটিস সাহেব দাদাবাবুদের বড়সাহেব । একদিন দাদাবাবুদের আপিলে গিয়ে চুপ করে বসে আছি, প্রেটিস সাহেব যাচ্ছে বারান্দা দিয়ে। জানেন তো সার, প্রেটিস সাহেব, চিফ সেক্রেটারি টু দি গভর্নমেণ্ট অব বেঙ্গল—কি চেহারা ! গটমট করে যাচ্ছে কি-সাহেব বাচ্চা । দাদাবাবুর ঘরের সামনে দিয়ে গেল একেবারে । দেখেছেন প্রেটিস সাহেবকে দাদা ? -मो । ዥ —মস্তলোক প্রেটিস সাহেব। দেখুন, কত বড় বড লোকের সঙ্গে মিশে এসেছি, এখন এই পাড়াগায়ে যত সব আনকালচার্ড লোকের সঙ্গে মেশা—আই ডু নট লাইক ইট। যদিও বুঝিলাম না সে প্রেন্টিস সাহেবের সঙ্গে মেলামেশা কি ভাবে এবং কখন করিল, তবুও ঘাড় নাড়িয়া সায় দিয়া বলিলাম, ঠিক কথা, ঠিক কথা । বাড়ীতে আসিয়া স্ত্রীর কাছে সব বলিলাম। স্ত্রী বলিলেন—আহা, ছোকরাটি ভাল, এখানে ভগ্নীপতির বাড়ী পড়ে আছে কেন ? অল্প বয়েস—চাকরি করে না কেন ? বি. র.–৮ (২)—৪