পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


खहैश् खष्ण 4$ —তবুও আসি কেন, এই তো ? -टैिंक ऊाँझे । —যদি বলি, না এসে থাকতে পারি নে ? —আমার বিশ্বাস হয় না। —কি করলে বিশ্বাস হয় ? আমি এই দেয়ালে মাথা কুটবো । দেখুন— পান্না সত্যিই দেয়ালের দিকে এগিয়ে যায় দেখে আমি গিয়ে ওর হাত ধরলাম। সঙ্গে সঙ্গে কি হোল, তীব্র একটা বৈদ্যুতিক স্পর্শে যেন আমার সারা দেহ ঝিমঝিমিয়ে উঠলো । স্বরবালাকে ছাড়া আমি কোন মেয়েকে স্পর্শ করি নি তা নয়। আমি ডাক্তার মানুষ, ব্যবসার খাতিরে কতবার কত মেয়ের গায়ে হাত দিয়ে রোগ পরীক্ষা করতে হয়েছে, কিন্তু এমন বৈদ্যুতিক তরঙ্গ সঞ্চারিত হয় নি সারা দেহে। পান্না ফিকৃ করে হেসে বললে—ছু লেন যে বড় ? বললাম—কেন ছোব না ? তুমি মেথর নও তো—


আপনার চোথে তাদের চেয়ে ও অধম ।

--বেশ, যদি তাই হয়, তলে এলে কেন ? --ওই যে আগে বললাম, আমার মরণ, থাকতে পারি নি । —কেন, গোবিন্দ দা, আবদুল হামিদ ? —আমি ঠিক এবার মাথা কুটবে আপনার পায়ে । অীর বলপেন না ও কণা। পান্না খুব দৃঢ়স্বরে এই কথাগুলি বললে। সঙ্গে সঙ্গে ঘরের এদিক ওদিক চেয়ে দেখলে আবার । আমি বললাম—কি দেখচো ? —ঘরে কেউ নেই ? আপনি এক?? —কেন বল তো ? —তাই বলচি | —না। মাঝি ঘুমুচ্চে বাইরের বারানায়। —আপনার বাড়ী কোথায় ? —এখান থেকে পাঁচ মাইল দূরে। নৌকো করে যাতায়াত করি । —আপনার নৌকোর মাঝি ? ওকে বিদায় দিন । —বা রে, কেন বিদেয় করবো ? পান্না মুখ নিচু করে রইল। জবাব দিলে না আমার কথার। আমি বললাম—শোনে, তুমি এখান থেকে যাও। পান্না বললে—তাড়িয়ে দিচ্ছেন ? —দিচ্ছিই তো । —আচ্ছা, আপনার মনে এতটুকু কষ্ট হয় না যে আমি যেচে যেচে–