পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/১৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাণ্ডু করিয়া কোন কামিনী অামার নিকট আসিতে পরিবেন না । , ইহাতে সত্যবতী কছিলেন, পুত্র ! দেবীরা যাহাতে সদাই । গর্ভবতী হয়, তাহ কর । রাজ্য রাজশূণ্ঠ থাকিলে প্রজাগণ অনাথ হইয়া বিনষ্ট হইবে, ক্রিয়া সকল লুপ্ত হইবে, বৃষ্টি হইবে না এবং । দেবগণ অস্তৰ্হিত হইবেন । সুতরাং তুমি সদাই গর্ভাধান কর । । ব্যাস তাছাই হইবে বলিয়া স্বীকার করিলেন এবং প্রথমে অম্বিকার গর্ভে ধৃতরাষ্ট্রকে উৎপাদন করিলেন । { ধুতরাই দেখ । ] পরে অম্বালিকা ঋতুস্নাতী হইলে সত্যবতী তাছাকে কহিলেন, তোমার এক দেবর আছেন, তিনি অদ্য নিশীথ সময়ে তোমার নিকটে আগমন করিবেন, তুমি অপ্ৰমত্ত হইয় তাহার । প্রতীক্ষা কর । মহর্ষি নিশীথ সময়ে অম্বালিকার নিকট অাগ- ; মন করিয়া উপগত হইলেন । অম্বালিকা সেই ঋষির উগন্ধপ ; অবলোকন করিয়া ভয়ে পাণ্ডুবর্ণ হইলেন । ব্যাস তাহাকে - তীত, বিষণ্ণ ও পাণ্ডুবর্ণ দেখিয়া কহিলেন, তুমি আমাকে বিরূপ দেখিয়া পাণ্ডুবর্ণ হইয়াছ, এই কারণে তোমার পুত্রও পাণ্ডুবর্ণ হইবে। সেই পুত্র ‘পাণ্ডু নামেই খ্যাত হইবে । ব্যাসদেব এই বলিয়া গৃহ হইতে নিৰ্গত হইলে পর সত্যবতী র্তাহাকে সস্তানের বিষয় জিজ্ঞাসা করিলেন। ব্যাস জননীর নিকট বালকের পা ধুবৰ্ণ হইবার বিষয় নিবেদন করিলেন । অনন্তর সময় উপস্থিত হইলে অম্বালিকা উত্তম শ্রযুক্ত পাণ্ডুবর্ণ এক কুমার প্রসব করিলেন। তাহার নাম পাণ্ডু হইল। ধৃতরাষ্ট্র, পাণ্ডু ও বিদুর জন্মাবধি ভীষ্মকর্তৃক পুত্রবৎ প্রতিপালিত, স্বজাতি-বিহিত সংস্কারনিয়মে সংস্কৃত, ত্রত ও অধ্যয়নে নিরত, শ্রম ও বায়ামে কুশল হইয়। কালক্রমে যেীবনাবস্থা প্রাপ্ত হইলেন। পাণ্ডু ধমুৰ্ব্বেদাদি সকল শাস্ত্রে পারদর্শী হইয় উঠিলেন। কুস্তিভোজকন্ত কুষ্ঠী স্বয়ম্বরে পাণ্ডুকেই বরমাল্য অর্পণ করেন । এইরূপে কুন্তীর সহিত পাণ্ডুর বিবাহ হইল । পরে ভীষ্মদেব মদ্রকন্ত মাদ্রীর সহিত পাণ্ডুর অার এক বিবাহ দেন। পাণ্ডুর এই দুই পত্নী অসামান্তরূপবতী ও নানাবিধ সদগুণসম্পন্ন ছিলেন । অনস্তর পাণ্ডু, কুন্তী ও মাত্রীর সহিত মুখে কাল কাটাইতে লাগিলেন । তিনি ভাৰ্যার সহিত ত্রিংশৎ [ ১৬৪ ] রাত্রি বিহার করিয়া ভূমণ্ডল জয় করিবার জন্ত যাত্রা করিলেন। ভূমণ্ডলস্থ সমস্ত ভূপালগণ পাদুকর্তৃক পরাভূত হইলেন । রাঙ্কগণ তাহাকে কৃতাঞ্জলিপুটে প্রণাম করিয়া মণিমুক্তপ্রবালাদি উপঢৌকন দিয়া সস্তোষবিধান করিলেন। সকলে বলিতে লাগিল, শাস্তমুর কীৰ্ত্তি নষ্টপ্রায় হইয়াছিল, এক্ষণে পাণ্ডু তাহার পুনরুদ্ধার করিলেন। ষে সকল ভূপতি কুরুদিগের ধন ও রাজাহরণ করিয়াছিল, পাণ্ডু স্বভূজবলে সেই সকলেরও উদ্ধারসাধন করিলেন। পাণ্ডু এইরূপে বিজয় লাভ পাণ্ডু


করিয়া হস্তিনাপুরে প্রবেশ করিলেন । জনস্তয় ধৰ্ম্মাত্মা গা ধু ধৃতরাষ্ট্রের অমুজ্ঞা লইয়া বteবল-বিজিত ধনরাশি ভীষ্মকে, সত্যবর্তীকে ও মাত অম্বালিকাকে উপস্থার দিলেন । ধৃতরাষ্ট্র বীরবর পাণ্ডুর বিক্রমজ্জিত ধনরাশি দ্বার। পঞ্চ মহাযজ্ঞ নিম্পন্ন করিলেন, ঐ পাঁচটী মহাযজ্ঞে এত পরিমাণে ধন ব্যয়িত হইয়াছিল, বে, তাহা দ্বারা শতসহস্ৰ দক্ষিণাযুক্ত শত অশ্বমেধ সম্পন্ন হইতে পারিত ।

অনন্তর নিরলস পাণ্ডু কুন্তী ও মাদ্রীয় সহিত একত্র হুইয়। অরণ্যবাসী হইলেন। তিনি স্থখসেধ্য প্রাসাদনিলয় ও শুভ HHHH BBBSK BBD DBB BDD DHH 0 DBBBK মৃগয়াসক্ত হইয়া কালাতিপাত করিতে লাগিলেন । একদ রাজা পাণ্ডু মৃগব্যালনিষেধিত মহারণো বিচরণ করিতে করিতে মৈথুনধৰ্ম্মে আসক্ত এক যুথপতি মুগকে দেখিতে পাইলেন । পরে তিনি তীক্ষ্ণ ও আশুগ পঞ্চশরদ্বারা সেই মুগ ও মুণীকে বিদ্ধ করিলেন । কোন মহাতের স্বী তপোধন ঋষিপুত্র মুগন্ধপ ধারণ করিয়া ভাৰ্যার সহিত সঙ্গত হইয়াছিলেন, তিনি সেই মৃগীতে সংসঙ্গ থাকিয়াই শল্পাষাতে ক্ষণকাল মধ্যে ভূতলে পতিত হইয়। মনুষ্যবাক্যে সমাকুল হৃদয়ে বিলাপ ক'প্লাত করিতে পাওকে কপিলেন, হে রাজন। কমিক্ৰোধযুক্ত বুদ্ধিহীন পাপরত ব্যক্তিয়া ও ঈদৃশ নৃশংস কৰ্ম্ম করে না । তুমি মৃগবধ করিয়াছ বলিয়া মামি আ কারণে তোমাকে নিষ্প৷ করিতেছি না, কিন্তু এই সময়ে নিষ্ঠুরাচরণ না করিয়া আম’ল মৈথুনকাল প্রতীক্ষা করা উচিত ছিল । আমি কুতুঙ্গলাক্র্য স্থ হইয়া এই যুণীতে সন্তান উৎপাদন করিবার নিমিত্ত মৈথুন চরণ করিতেছিলাম, তুমি তাহ বিফল করিলে । তুমি পুরুবংশে জন্মগ্রহণ করিয়tছ, ইচ্ছ। তোমার উপযুক্ত কৰ্ম্ম হয় নাই । তুমি শাস্ত্রজ্ঞ ও ধৰ্ম্মার্থতত্ত্ববিদ এবং স্ত্ৰীসম্ভোগের বিশেষজ্ঞ হইয়াও এই যে অস্বৰ্গা কৰ্ম্ম করিলে ইচ্ছ। তোমার উপযুক্ত হয় নাই। জামি মৃগবেশধারী ফলমূলteারী মুনি, আমার নাম কিমিদম । আমি লোকলজ্জায় মৃগীতে মৈথুনাচরণ फग्निरठश्शिांम, श्रांभांद्र अङ्कशिकt८ण फूमि श्रांभांब्र «था-- সংস্থার করিলে। আমার মৃগরূপাবস্থায় তুমি বধ করিয়াছ, ५छछ cउiभtग्न उकश्उIाग्न *ॉष्ठक छठेtप न ; किरू छूभि এরূপ নিষ্ঠুর ব্যবহার করিয়াছ বলিয়া আমি তোমাকে এই শাপ দিতেছি যে, তুমি যখন স্ত্রীসংসর্গ করিবে, তখন তুমিও অামার গুtয় অতৃপ্তমনে মৃত্যুমুখে পতিত হুইবে । যে কাস্তার সহিত সংসর্গ করিবে, পরে সেই প্রণয়িণী ভক্তিপূৰ্ব্বক তোমারই অমুগামিনী হুইবে । মুগন্ধপধারা মুনি এইরূপ বলিয়৷ ক্ষণকাল মধ্যে প্রাণ পরিত্যাগ করিলেন ।