পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৩৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


어8에


or

মাধবাচায্য অতি সংক্ষেপে এই দার্শনিকের সারসঙ্কলন করিয়াছেন । [ শৈবশকে অপরাপর বিবরণ দ্রষ্টব্য। ] পাশুপতরস (পুং ) রসেগ্রসারসংগ্রছেক্তি ঔষধ বিশেষ । এই ঔষধ প্রস্তুত প্রণালী—পার একভাগ, গন্ধক দুইভাগ এবং লোহভস্ম তিনভাগ। বিষ এই তিন দ্রব্যের সমান, এই সকল চিতার কাথে ভাবনা দিয়া পরে ধুস্তত্ববঙ্গভন্ম ৩২ ভাগ মিশাইয়া শুঠ, পিপুল, মরিচ ও লবঙ্গ প্রত্যেক তিনভাগ, জায়ফল ও জৈত্রী প্রত্যেকে অৰ্দ্ধভাগ, বিট, সৈন্ধব, সামুদ্র, উদ্ভিদ ও সচললবণ, সিজ, এরও, তেতুলছালভষ্ম, অপমাৰ্গ, ক্ষার, অশ্বখক্ষার, হরীতকী, যবক্ষার, সাচিক্ষার, হিঙু, জীর, লোহাগ, প্রত্যেকে এক একভাগ মিশাইয়া নেবুর রসে ভাবনা দিয়া এই ঔষধ প্রস্তুত করবে। এককুজ পরিমাণে বট করিতে হইবে । অমুপান বিশেষে সেবিত হইলে অগ্নিদীপ্তি, পাচন, হৃদয়ের হিত ও সদ্যবিস্তুচিকা রোগ প্রশমিত হয়। তালমুলীরস অমুপানে—উদরাময়, মোচরসের অমুপানে অতীসার, ঘোল ও সৈন্ধবলবণ অমুপানে গ্ৰহণী, লেীবর্চললবণ, পিপুল ও শুঠ অনুপানে শূল, কেবল ঘোল অনুপানে অৰ্শ, পিপুল অনুপানে যক্ষ্মা, শুঠ ও সেীবর্চল লবণ অঙ্কুপানে বাতরোগ, ধনে ও চিনি অমুপানে পিত্তরোগ এবং পিপুল ও মধু অমুপানে শ্লেষ্মরোগ প্রশমিত হয় । স্বয়ং ধন্বন্তরি এই ঔষধের উপদেশ দিয়াছেল । ( রসেন্দ্রসারস” অজীর্ণাধিকার ) পাশুপতাস্ত্র (রা ) পাশুপতং পশুপতিসম্বন্ধি অস্ত্রং। পশুপতির শূলাস্ত্র। মহাদেবের এই অস্ত্র অতি ভয়াবহ। অৰ্জুন অতি কোঠর তপস্তা করিয়া মহাদেবের নিকট হইতে এই পাশুপতাস্ত্র লাভ করেন। এই অস্ত্র বৃহৎকায় ও ইহার প্রভা যুগান্তকালের অগ্নিসদৃশ। এই অস্ত্রের পঞ্চবক্ত, দশবাহু, ও ত্রিলোচন । “গজাননোহপি সঞ্চিস্তু যত্ত্বৎ পাশুপতং পরম্। মহাৰূপং মহাকায়ং যুগাস্তাগ্নিসমপ্রভম্ ॥ পঞ্চবক্তং মহাঘোরং দশবাহুং ত্রিলোচনম্। সেীমাং ঘোরমুঘোরাস্তমূৰ্দ্ধকেশং ভয়েtংকটম্ ॥ জটাভারেসুগঙ্গাহি-খ্রিয়মাণং শিবাঙ্গজম্। বেণুবীণাশঙ্খ ঘণ্টং ডমরুরাবসংকুলম্ ॥” (দেবীপু” ) পাশুপাল্য (কী ) পশুপালন্ত ভাব কৰ্ম্ম বা পশুপাল-ষাএ। বৈহুকৃত্তি, বৈশুগণ কৃষি ও পশুপালনত্বারা জীবিক নির্বাহ করিবে । "দীনমধ্যয়নং যজ্ঞো বৈশুস্তাপি ত্রিবেধসঃ । বাণিজ্যং পাশুপাল্যঞ্চ কৃষিঞ্চৈবাস্ত জীবিকা ॥” (মার্ক' পুং২৮৬) [ ৩৩৬ ] পাশ্চাত্যদর্শন পাশুলী ( দেশজ ) পদাভরণভেদ । পাশুবন্ধক (ত্রি) পশুবন্ধঃ প্রয়োজনমস্ত ঠক্‌। ১ যজ্ঞে বধের জন্য পশুরন্ধনস্থানাদি, যন্ত্রীয় পশুবধাদির স্থান । স্ক্রিয়াং টাপ্‌ কপি অত ইত্বং । ২ বেদী। (আখ’ শ্রেী” ৩১৬) পাশ্চাত্য (ত্রি) পশ্চাৎ-ত্যক (দক্ষিণাপশ্চাৎ পুরসস্ত্যক্ । পা ৪।২৯৮ ) পশ্চাদ্ভব, যাহা পরে হয় । "পাশ্চাত্যং যামিণীযামং ধ্যানমেবান্ধপদ্যত । স্নাত্বা প্রাতঃক্রিয়াঃ কৃত্বা পুনরাস্তে সমাহিতঃ ” ( দেবীভা" ১১৭৬৬ ) ২ পশ্চিমদেশজাত । *স বিজিত্য গৃহীত্ব চ ভূপতীন রাজসত্তমঃ। প্রাচ্যমুদচ্যান পাশ্চাত্যান দক্ষিণাত্যানকালয়ৎ ॥" ( ভারত ১৷১২১৷১১ ) পাশ্চাত্যদর্শন, এদেশে দর্শনশাস্ত্র বলতে যাহা বুঝায়, ইংরাজি এবং অন্যান্য যুরোপীয়ভাষায়, তাহার প্রতিশব্দ “ফিলজফি” (Philosophy)। "ফিলজফি” শব্দের ব্যুৎপত্তিগত অর্থ জ্ঞানামুরগি ; কথিত আছে যে প্রাচীন গ্ৰীকৃদার্শনিক পিথাগোরস্ (Pythagoras) এই শব্দের প্রচলন করেন। পণ্ডিতপ্রবর সক্রেটস্ স্বভাবসিদ্ধ বিনয়বশতঃ আপনাকে জ্ঞানী না বলিয়া জ্ঞানানুসন্ধিৎসু (Philosopher) বলিয়া পরিচয় দিতেন। পূৰ্ব্বে ফিলজফি বলিতে সৰ্ব্ববিধ বিদ্যাই বুঝাইত ; জড়বিজ্ঞান, সাহিত্য ইত্যাদি বিদ্যামাত্রই ‘ফিলজফি’ নামে অভিহিত হইত। দার্শনিক প্লেটোর গ্রন্থেই সৰ্ব্বপ্রথম উক্ত শব্দের অধুনা প্রচলিত অর্থে প্রয়োগ দেখিতে পাওয়া যায়। প্লেটো দার্শনিককে "অবিনশ্বর পদার্থ জ্ঞানবিশিষ্ট” বা “পদার্থ সকলের স্বরূপ নির্ণয়বিষয়ে জ্ঞানী” এইরূপ আখ্য প্রদান করিয়াছেন। প্লেটোর প্রবর্তিত সংজ্ঞার সহিত আধুনিক সংজ্ঞা সকলের সামঞ্জস্ত থাকিলেও তাহার গ্রন্থে ধৰ্ম্মের সস্থিত দার্শনিক তত্বের জটিল সংমিশ্রণ বিধায় তৎকৃত নির্দেশ অপেক্ষাকৃত অস্পষ্ট । নিখিল জ্ঞানসম্পন্ন দার্শনিক আরিষ্টটল দর্শনশাস্ত্রের সীমা অপেক্ষাকৃত সুস্পষ্ট এবং ইহার অদ্যান্ত শাস্ত্র হইতে বিবিত্ত নির্দেশ করেন । সক্রেটিসের পূর্ববর্তী দার্শনিকগণের মধ্যে দর্শনশাস্ত্রের পরিধি ব্ৰহ্মাণ্ডতত্বে (Cosmology ) পর্যবসিত হইয়াছিল, জগতের উৎপত্তিতত্ব পরমাণুবাদ প্রভৃতি বর্তমান জড়বিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয় সকলও উহার অন্তভূক্ত ছিল। পরে সক্রেটস্ নীতি ও জ্ঞানতত্ত্ব দর্শনশাস্ত্রের সীমার মধ্যে সন্নিবেশিত করেন ; এইরূপে বহির্জগৎ ও অন্তর্জগতের সামঞ্জস্ত বিধানের আংশিক চেষ্টা করা হয়। প্লেটে সক্রেটিসের পদাঙ্গুসরণ করিয়া তৰ্কশাস্ত্র নীতি, ধৰ্ম্ম প্রভৃতি দর্শনশাস্ত্রের অন্তভুত বলিয়া নির্দেশ করিয়াছেন।