পাতা:বিশ্বকোষ ষষ্ঠ খণ্ড.djvu/২৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চালুক্য পাণুিগ্রহণ করেন। তাহদের পুত্র বিক্রমাদিত্য ( ৪র্থ)। ভীম হইতে বিক্রমাদিত্যের পুৰ্ব্বৰী রাজগণ বোধ হয় অতি সামান্ত জনপদে রাজত্ব করিতেন অথবা পরাক্রান্তু রাষ্ট্রকূটরাজের মহাসামন্ত মধ্যে গণ্য হইয়াছিলেন । অষ্যণের পুত্র ৪র্থ বিক্রমাদিত্য হইতেই এই বংশের পুনরভু্যদয় । ফ্লিট সাহেবের মতে—৪র্থ বিক্রমাদিত্যের পুত্র তৈল (২য়) হইতেই চালুক্যরাজ্যের পুনরুদ্ধার সাধিত হয়। কিন্তু ৪র্থ বিক্রমাদিত্যের তামশাসন ও যেসূত্ৰ-শিলাফলকে লিখিত আছে যে ( ৪র্থ ) বিক্রমাদিত্য বিজয়বিভাণী ও বিরোধিবিধ্বংসী ছিলেন, চেদিরাজলক্ষ্মণদুহিতা বোস্থাদেবীকে তিনি বিবাহ করেন, তাহার অপর নাম বিজিতাদিত্য (১৯) । ইহাতে বোধ হয় যে, ইনি চেদিরাজের সাহায্যে প্রথম নষ্ট গৌরব উদ্ধারের চেষ্টা করেন। ডাক্তার বুর্ণেলের মতে, ইনি ৮৯৫ শক হইতে ৯১৯ শক পর্যন্ত রাজত্ব করেন। পরবর্তী জয়সিংহদেবের সমকালীন শিলালিপিতে লিখিত আছে, যে সত্যাশ্রয় কুলোস্তব মূর্মড়ি তৈল (সম্ভবতঃ তৈল ২য় ) রট বা | রাষ্ট্রকূটরাজগণকে বিদলিত ও র্তাহাদের হাত হইতে রাজ্যোদ্বার করিয়া চালুক্যকুলচুড়ামণি হইয়াছিলেন (২০)। অনুমান হয় যে পিতার সময়েই বীরবর তৈল (২য়) রাজ্যোদ্ধার করিতে সমর্থ হইয়াছিলেন । ৪র্থ বিক্রমাদিত্য অথবা ২য় তৈলরাজ বাতাপিনগরীতে রাজত্ব করিয়াছিলেন কি না, তাহার কোন নিদর্শন নাই । ৯৭৫ শকাঙ্কিত ১ম সোমেশ্বরদেবের সাময়িক শিলাফলকে তিনি কল্যাণাৰীশ্বর বলিয়া পরিচিত হইয়াছেন । বোধ হয় তাহার পূর্বপুরুষ ৪র্থ বিক্রমাদিত্য বা ২য় তৈল চালুক্যরাজ্য পুনরুদ্ধার করিয়া কল্যাণে রাজধানী স্থাপন করেন । [ কল্যাণ দেখ। ] ৪র্থ বিক্রমাদিত্যের পুত্র তৈল (২য়) এক মহাপরাক্রান্ত রাজা হইয়াছিলেন। যেৰূরের শিলাফলকে লিখিত আছে যে তৈল রাষ্ট্রকূটরাজ ককরের দুইটী রণস্তম্ভ বিচ্ছিন্ন করেন। তিনি কুটিল রাষ্ট্রকূটদিগের হস্ত হইতে চালুক্যবল্লভরাজলক্ষ্মী উদ্ধার করেন । চৈদ্য ও উৎকলরাজকে সমরে পরাভব এবং রাষ্ট্রকুটরাজ ( ভষ্মহের ) কস্তা জাকবার পাণিগ্রহণ করেন । র্তাহার ঔরসে জাকববার গর্ভে (২য়) সত্যাশ্রয় জন্ম গ্রহণ করেন। ইনিও নীনাস্থান জয় করিয়া রাজ্যের পুষ্টি

(२२) "श्रख्वख८ब्रtछनूष्ण बिछब्रविखानौ १ि८ब्रावि१िभ्रश्नौ ८७५मt বিজিত।দিত{স ঠ}ধনে। ৰিক্ৰমাদিত্যঃ " (**) Lnd, Ant. vol. V. P. 17. [ २७8 1 চালুক্য সাধন করিয়াছিলেন । সত্যাশ্রয়ের পর তাহার মেমুজ দশবৰ্ম্ম৷ বা যশোবন্ম সিংহাসনে অভিষিক্ত হন । তাহার মহিষী ভাগ্যবর্তীর গর্ভে (৫ম) বিক্রমাদিত্য ত্ৰৈলোক্যময় বল্লভেঞ্জ अनाशश्न काव्रन । ईशब्र ऊाञ्चलांनन नृप्हे छांना याब्र ८ए ইনি ৯৩০ শকে রাজপদ-প্রাপ্ত হন। ইনি মহারাজাধিরাজ পরমেশ্বর-পরমভট্টারক উপাধি গ্রহণ করিাছিলেন। তাছার পর তাহার কনিষ্ঠ ভ্রাভ জয়সিংহ-জগদেকমন্স রাজসিংহাসন লাভ করেন । তঞ্জোরের শিলাফলক পাঠে জানা যায় যে ইলি মালবদিগকে বিধ্বস্ত এবং চেল্প ও চোলরাজগণের সহিত যুদ্ধ করেন। সমস্ত কুন্তলদেশ ইহার অধিকৃত হইয়াছিল। ৯৬৪ শক পর্য্যস্ত ইহার রাজ্যকাল । ইহার ভগিনী অক্কাদেবী। তৎপরে তাহার পুত্র সোমেশ্বর আহবমল্প প্রবলপ্রস্তাপে রাজত্ব আরম্ভ করেন । বিক্রমাঙ্কচরিতে লিখিত আছে যে ইনি দুইবার চোলরাজ্য জয় করিয়াছিলেন, কিন্তু আবার ১ম কুলোত্ত,ঙ্গের অনুশাসনাদি পাঠে বোধ হয় যে ইনিও তাহার নিকট একবার পরাজিত হইয়াছিলেন । এই ১ম সোমেশ্বরের সময়ে বনবাস্ত্রীর কাদম্বরাজগণ পুনরায় স্বাধীনতা লাভ করেন । সোমেশ্বরের তিন পত্নী বচলাদেবী, চন্ত্রি কাদেবী ও মৈললাদেবী । ইহার ভগিনী অববল্লদেবী, যাদবরাজ আহবমল্পের সহিত তাহার বিবাহ হয়;(২১) । সোমেশ্বরের পুত্রের নাম ভুবনৈকমল্ল বা ২য় সোমেশ্বর । ইনি ৯৯০ হইতে ৯৯৭ শক পর্য্যস্ত রাজত্ব করেন । ইনি কাদম্বরাজগণকে শাসন করিয়া কনিষ্ঠ ভ্রাতা জয়সিংহ ত্ৰৈলোক্যময়কে বনবাসীর শাসনকর্তৃত্ব প্রদান করেন । জয়সিংহ তথায় ১০০১ হইতে ১ ০০৩ শক পর্য্যস্ত শাসনকার্য্য নিৰ্ব্বাহ করিয়াছিলেন । তৎপরে সোমেশ্বরের মধ্যম ভ্রাত ৬ষ্ঠ বিক্রমাদিত্য ত্রিভুবনমল্লের অভু্যদয় । মহাকবি রিহ্নণ ইহাকেই উপলক্ষ করিয়া “বিক্রমাঙ্কদেবচরিত” নামক কাব্য রচনা করেন । চোলরাজকন্সার সহিত ইহার বিবাহ হইয়াছিল । যে সময়ে তিনি তুঙ্গভদ্রানদীতীরে শিবিরে অবস্থান করিতেছিলেন, সেই সময়ে তাহার শ্বশুরের মৃত্যুসংবাদ তাহার কর্ণগোচর হয় । তিনি অবিলম্বে সসৈন্তে কাঞ্চীপুরাভিমুখে যাত্রা করিলেন । এখানে দারুণ বিদ্রোহীদিগকে দমন করিয়া প্রকৃত উত্তরাধিকারীকে কাঞ্চীপুরের সিংহাসনে অভিষিক্ত করিলেন, তৎপরে তিনি গঙ্গৈকোওচোলপুর আক্রমণ করেন। অনতিকাল পরেই তিনি শুনিলেন যে, যে তাহার শুালক বিদ্রোহীদিগের হস্তে নিহত হইয়াছেন এবং বেঙ্গিরাজ রাজিগ v°) iud, Aut. vol. XII, p. 132.