পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তদশ খণ্ড.djvu/৭০৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বসন্তরোগ বসন্তরোগ ইষ্টলে ছেদন করিয়া কাৰ্ব্বালক তৈলযুক্ত লিস্টের পট .দিবে। (৭) প্রতিষেধক-বিশেষরূপে আয়োগ্য ন হইলে রোগীকে কোন স্থানে যুাইতে দিবে না। এতদ্দেশে এইরূপ প্রথা আছে যে, কোন গ্রামে বসন্ত রোগের প্রাচুর্ভাব হইলে, অথবা বাঙ্গালা টীক লষ্টলে মন্ত গ্রামের লোক সেই গ্রামে যায় না। যে গৃহে বসন্তরোগাক্রান্ত রোগীকে রাখা হয়, সেই গৃহে চুণ লেপন করিয়া ডিস্-ইনফেকৃটেন্ট ঔষধ সকল ছড়াইবে। শয্যা ও বস্ত্রাদি ধৌত কিংবা দগ্ধ করিবে । এই পীড়া উপস্থিত হইলে যাহাঙ্গের টীকা হয় নাই তাহাদিগের টীকা দেওয়া উচিত। সমুদ্রগর্ভে জাহাজের উপর বসন্তু রোগ প্রকাশিত হইলে এবং ত্যাকৃসিন্‌ লিম্ফ না থাকিলে, যাহীদের টীকা হয় নাই তাহাদিগকে বসন্তুবীজ দ্বারা টক। দেওয়া বিধেয় । কারণ তদ্বারা বসন্ত রোগ মৃদ্ধ লক্ষণাক্রান্ত ইষ্টয়া থাকে। বসন্তের পুত্বপূর্ণ অবস্থায় নিম্নোক্ত ঔষধ— R সোডি সলফে কাৰ্ব্বলাস 》e C একৃষ্ট্র্যাক্ট সিস্কোনি লিকুইড, ১৫ ফোটা একোয়৷ ১ আউন্স এক মাত্র তিন ঘণ্টা অন্তর ব্যবহার্য্য । «talet Gisl ( Inoculation ) ইহাতে বসন্তের বীজ দ্বার টীকা দেওয়া হয় । টকা দিবার পূব দ্বিতীয় দিবসে ছেদিত স্থান কিঞ্চিৎ লালবর্ণ দেখায় । চতুর্থ কিবা পঞ্চম দিবসে ঐ স্থান প্রদাহযুক্ত ও তথায় একটি সিকেল উৎপন্ন হয়। উপরোক্ত দিবসে উহার চতুষ্পার্থে ! এরিওলা হইয়া থাকে। এই সময়ে প্রাথমিক জর উপস্থিত হয় ; এবং ৩৪ দিবসের মধ্যে সৰ্ব্বাঙ্গে গুটি বহির্গত হইতে দেখা যায় । ইতিমধ্যে টীকার গুটি পূয়যুক্ত হইয়া ক্রমশঃ শুস্ক হয় । ইহাতে গুটির সংখ্যা নুন ও লক্ষণগুলি মৃদু দেখা যায় বটে, কিন্তু কখন কখন রোগ সাভঘাতিক হইয়া থাকে । ভেরিওলয়েড (varioloid)—টীকা দিবার পর বসন্ত রোগ হইলে তাহাকে ভেরি ওলয়েড, কহে । ইহাতে দ্বিতীয় জরের লক্ষণগুলি প্রায় প্রকাশিত হয় না । গুটির গতি মৃত্ন ও ভেসিকেল গঠিত হইয়াই শুদ্ধ হইতে থাকে । সময় সময় পষ্টউল হইলেও শীয় শুকাইয়া যায়। গাত্রে গভীর দাগ জন্মে না । কোন কোন স্থলে গুটি বহির্গত হইবার পূৰ্ব্বে গাত্রে বৃহৎ বৃহৎ ৭াল দাগ দেখা যায় ; যাহাকে রাস্ ( Rash ) কহে । Roatán owl ( vaccination ) বহুকাল পূৰ্ব্বে ইতালিদেশীয় চিকিৎসকেরা, জানিতে পারেন যে, গাভী ও অম্লান্ত পখাদির দেহেও একপ্রকায় বসন্তু বহির্গত হইয়া থাকে। ১৭৪৫ খৃষ্টাব্দে ইংলওদেশে প্রথমে এই বিষয়ের আলোচনা হয় । ১৭৮০ খৃষ্টাবো ডাং জেনার ( Dr. Jenner) টীকা দিবার উপযোগিতা সম্বন্ধে একট প্রবন্ধ লেখেন। তিনি ঐ প্রবন্ধে উপদেশ দেন যে, নরদেহে গো-বীজ প্রবেশ করিলে গুটির গতি মৃদু হইয়া থাকে। অনেক সময় দেখা গিয়াছে যে, বসন্ত সংক্রামক হইলে গাভীর পয়োধরেও ভ্যাকসিনা বা গো-বসন্ত হয়। মানব-বসন্ত-বীজ গাভীর উদরের নিকট ইনোকিউলেটু করিলে শরীরের মধ্যে বিশেয পরিবর্তন হেতু বসন্ত-গুটি না হইয়া গো-বসন্ত বাহির হইয়া থাকে ;" তাহার ক্রিয়া বসন্তের ক্রিয় অপেক্ষ মৃদু। এই গো-বসন্তের লসিকা দ্বারা টকা দেওয়া যায়। গাভীর স্তনের উপর গুটি হইলে তাহাকে ভ্যাকৃলিন (Vaccina) বা গো-বসন্ত কহে । ঐ গুটির রসকে কাউ লিঙ্ক, অর্থাৎ গোবীজ বলে। এতদ্বারা টীকা দেওয়া হইয়া থাকে। যে প্রণালীতে ঐ বীজ দ্বারা মনুষ্যদেহে টকা দেওয়া যায়, তাহাকে ভ্যাকৃসিনেসন বলা যায় এবং উহা দ্বারা নরদেহে যে গুটি উৎপন্ন হয়, তাহাকে ভ্যাকসিন পষ্টিউল বলে। সপ্তম দিবসের গুটিকা হইতে যে রস পাওয়া যায়, তাহ লসিকা বা লিম্ফ নামে থাত । উহ! নিম্নলিখিত উপায় দ্বারা রক্ষা করা হয়—( ১ ) অতি' স্বক্ষ গ্ল্যাসটিউবে, ( 2 ) দুই খণ্ড কাচের মধ্যে, (৩) লসিক স্বল্প হইলে তাহার সহিত মিসিরি মিশ্রিত করিয়া রাখা যায় । সপ্তম বা অষ্টম দিবসে অর্থাৎ এরিওলা হইবার পূর্কে স্ফোটকের শীর্ষস্থানে অস্ত্র বিদ্ধ করিয়া লসিকা গ্রহণ করিবে । পাশ্বে বিদ্ধ করিলে মধ্যপ্রাচার ভেদ করিয়া লসিকা অস্ত্রোপৰি আসিতে পারে না এবং তাহাতে লসিকার রক্ত মিশ্রিত হইবার সম্ভাবন । শীতকালে ৬৭ এবং গ্রীষ্মকালে ৫।৬ দিনের গুটি হইতে বীজ গ্রহণ করা উচিত । এক ব্যক্তির হস্ত হইতে বীজ লষ্টয়া অন্তোর হস্তে টীকা দিলে বিশেষ উপকার দর্শে । সুস্থ বালকের টীকা হইতে বীজ লওয়া বিধেয় । কোন শিশুর চৰ্ম্মরোগ, অথবা গুহ্যদ্বার বা জননেন্দ্রিয়ে উপদংশজনিত উচ্চ স্ফোটক, কিংবা সর্দি ও গলায় ক্ষত থাকিলে তাহার বীজ লইবে না । পরিষ্কৃত ল্যানসেট ( Lancet ) ব্যবহার্য্য, অপরিস্কৃত অস্ত্র ব্যবহার করিলে, চৰ্ম্মের উত্তেজনা বৃদ্ধি পায় । ২ হইতে ৪ মাস বয়স্ক শিশুদিগকে টীকা দিলে বিশেষ ফলপ্রণ হয়। শিশু জরাক্রান্ত হইলে, অথবা চৰ্ম্মরোগ, উদরাময় বা দন্তোদগমের সম্ভাবনা থাকিলে টকা দেওয়া নিষিদ্ধ। বিশেষ আবশুক না হইলে ১hক বা ২ বৎসর বয়সের সময় টকা দেওয়া উচিত। ইদানীং অনেকানেক গ্রন্থকার কাফ-লিঙ্ক, অর্থাৎ গোবৎসে যে ভ্যাকৃসিন উৎপন্ন হয়, তাহার লসিকা দ্বারা টকা দিতে পরামর্শ