পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তদশ খণ্ড.djvu/৭০৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বসন্তুরোগ দেন। ইহা দ্বারা শিশুদিগকে একবার ও পরিণত বয়স্কদিগকে দুইবার টীকা দিলে বিশেষ ফললাভ হইয়াছে। টীকা দিবার স্থান—সাধারণতঃ যে স্থানে ডেলটয়েড় পেশী শেষ হইয়াছে, তাহার উদ্ধ ও অধঃ পরস্পর এক বা দেড় ইঞ্চ, অন্তরিত স্থানের চৰ্ম্ম আকৃষ্ট করিয়া অস্ত্রদ্বারা উপত্বকের নিম্ন পর্যন্ত বীজ প্রবেশ করাইতে হয়। প্রত্যেক হস্তে দুইট টকা দেওয়া উচিত। নিম্নলিখিত চারিটি প্রণালীতে টাকা দেওয়া বিধেয় । ( ১ ) ল্যানসেটের অগ্রভাগে বীজ লিপ্ত করিয়া তাহা বক্রভাবে প্রকৃত চৰ্ম্ম পৰ্য্যস্ত বিদ্ধ করিবে ; এরূপ ভাবে অস্ত্রাঘাত করিতে হইবে, যেন কেবল বিন্দুমাত্র রক্ত বহির্গত হয়। ৫।৬ সেকেণ্ড পর্য্যন্ত ছেদিত স্থানে অস্ত্র রাখিয়া পরে বাহির করিবে । (২) অস্ত্রদ্বারা সমান্তরালভাবে ৫৬ টি ছেদ করিয়া তদুপরি লিম্ফ', লিপ্ত করিবে। (৩) উত্নী দিবার মত সুচিক দ্বারা স্থানটী বিদ্ধ করিয়া তাহার উপর লিম্ফ সংলগ্ন করবে। (৪) অস্ত্র কিংবা লাষ্টকর এমোনিয়া দ্বারা উপত্বক উন্মোচন করিয়া বীজ দিবে। গুটির গতি—টীকা দিবার পর তৃতীয় দিবসে ছেদিত স্থানে লাল ও উচ্চ প্যাপিউল দৃষ্ট হয়। দিন দিন উহার উচ্চতা ও আরক্তিমতা বৃদ্ধি পায়। ৫৬ দিনের মধ্যে প্যাপিউলগুলি ভেসিকেলে পরিণত হয়। উহারা দেখিতে গোল বা অগুণকার, মধ্যস্থল নত, বর্ণ নীলাভ শ্বেত। ৭ম দিবসের শেষে উহাদের চতুর্দিকে একটা লালবর্ণ রেখা দেখা যায়, তাহাকে এরিওলা (Areola) কহে এবং তৎসময় গুটিগুলি পূর্ণতা প্রাপ্ত হয়। ৮ম দিবস হইতে গুটি সকল ক্রমশঃ বদ্ধিত হইয়া থাকে এবং দেখিতে গেল, আকৃষ্ট, ধার উচ্চ, বর্ণ মুক্তাব হায় উজ্জ্বল ও তন্মধ্যস্থ লিম্ফ কিঞ্চিৎ গাঢ় হয়। অণুবীক্ষণ দ্বারা সচল পদার্থ দেখিতে পাওয়া যায় ; তাহাকে ডাক্তার বিল ( Dr. Beale ) বাষ্টওপ্লাজম বলিয়। উল্লেখ করিয়াছেন। দুই দিবস পর্যন্ত এনিওল (Areola) বিবৰ্দ্ধিত হয় এবং উহাদের ব্যাস ১ হইতে ৩ ইঞ্চ পৰ্য্যন্ত বাড়ে। ক্রমে উহার চতুঃপার্শ্বস্থ স্থান স্ফীত ও দৃঢ় হয়। ১১ দিবসের পর স্ফোটকগুলি ক্রমশঃ শুদ্ধ হইতে থাকে এবং একত্র হইয়া চতুর্দশ বা পঞ্চদশ দিবসে একট বৃহৎ লোহিতাভ পাটল কচ্ছ, উৎপাদন করে। ঐ কচ্ছ, ২১ হইতে ২৫ দিবসের মধ্যে স্বলিত হইতে দেখা যায়। টাক | দেওয়া সফল হইলে তাহার দাগটি গোলাকার শ্বেতবর্ণ এবং ! চৰ্ম্মাপেক্ষ কিঞ্চিৎ নিম্ন দেখায় । উহার ব্যাস 4 ইঞ্চের নুন হয় না এবং তলদেশে স্বশ্ব স্বক্ষ গৰ্ত্ত থাকে। এতদ্ব্যতীত মধ্যস্থল হইতে চতুষ্পাশ্ব পর্য্যস্ত রেখাবৎ চিহ্ন দেখা যায়। Ֆ aকাল দাগ থাকিলে টকা সফল বলা যায় । দাগটি ঐক্ষপ [ १०१ ] 峰 ধ্ৰুং কিংবা পূৰ্ব্বোক্ত প্রকাপ চিহ্নযুক্ত না হইলে অসম্পূর্ণ বা বসন্তয়োগ সন্দেহজনক এবং দাশটি সামান্ত হইলে বিফল বলা যায় । সময় সময় গুটিগুলি উক্ত নিয়মানুসারে বহির্গত মা হইয়া ভিন্ন স্থানে ২ বা ৩টি কিংবা অনেকগুলি তেলিকেল বহির্গত হইতে cनष बाब्र। अभबिबठिंड cश-शैज रहेrङ bीक हश्न ४० দিন পর্যন্ত প্যাপিউল উৎপন্ন ছয় না ; বরং ১৪ কিংবা ১৬ দিন পরে বেগুণী বর্ণ এরিওলা দৃষ্টিগোচর হয়। , এতরি অনেকানেক অনিয়মিত ফল ফলিতে থাকে । টীকা দিবার পর প্রথমে জর ছয় না, কিন্তু গুটিগুলি পরিপক্ষ হইবার সময় জর ও অন্তান্ত লক্ষণ সকল প্রকাশ পায়। গাত্রে ১•৪ ডিগ্ৰী পৰ্য্যন্ত উত্তাপ উঠে। ঐ সময় টকা-স্থানে কওয়ন, উষ্ণতা, বেদন ও আকৃষ্টত অনুভূত হয় এবং কক্ষের মাওসমুচ শীত ও বেদনাযুক্ত হইয় থাকে ; তজ্জন্ত শিশুর হস্তচালনা করিতে কষ্টবোধ করে। কখন কখন এরিসিপ্ল্যাস্ বা ক্ষত এবং দুৰ্ব্বল শিশুদিগের অস্থিরতা, উদরাময়, ও অন্তষ্ঠি কঠিন লক্ষণ ঘটে। কোন কোন স্থলে বিশেষতঃ গাড়ীর গাত্র হইতে লিম্ফ হইয়া টকা দিলে প্রায় গাত্রে পাটনিক, শৈবালিকা বা রসগুটী বহির্গত হইতে দেখা যায় । এরূপ অবস্থায় জয়নিবারণার্থ শিশুদিগকে মৃদ্ধ বিরেচক ঔষধ, যথা-১ ড্রাম্ ক্যাষ্টর অয়েল ও সামান্ত ঘৰ্ম্মকারক ঔষধ দিবে। হস্তের প্রদাহ নিবারণ করিবার জন্ত মার্ক্স বস্ত্রখণ্ড, গোলার্ডস লোষণ, বা কোলড়, ক্রিম্ অথবা চন্দন লেপন করিবে । পুনটক প্রদান বিফল কিংবা অসম্পূর্ণ ইষ্টলে, অথবা বসন্ত রোগের প্রাথ্রভাব কালে, পুনরায় ইংরাজি টীকা দেওয়া যায়। সচরাচর বয়ঃপ্রাপ্তিল পর পুনরায় টকা দেওয়া হয় । কোন কোন গ্রন্থকার বলেন, ৭ বৎসর অন্তর টীকা দেওয়া উচিত । কিন্তু দ্বিতীয়বার ভাগ করিয়া টীকা দেওয়া হইলে পুনৰ্ব্বার টীকা দেওয়া আবশ্বক করে না। প্রথম দেওয়া টীকায় গুটি হইতে দ্বিতীয় বা তৃতায় বারের গুটির অনেক ৰিভিন্নতা আছে । ইহার স্ফোটক খায় বহির্গত হয় এবং ৫৬ দিনে রসগুট (Vehicle) পূর্ণ হষ্টয়া থাকে। ৮।৯ দিবসে শুষ্ক হইতে থাকে । পুনরায় টকা দিবার পরও জয়ের লক্ষণ সকল প্রায় প্রবল থাকে এবং কখন কখন এরিসিপ্ল্যাস উপস্থিত হয়। পুনটাক প্রদানকালে কখন কথন কোন দুৰ্ব্বলচিত্ত ব্যক্তি মুচ্ছ যায়। একবার টীকা হইলে পর যাহার দ্বিতীয়বার টীকা দেওয়া হয়, তাহার দেহে আর কখনও বসন্তরোগ প্রবিষ্ট হইতে পালে না । কোন কোন স্থলে যদিও বসস্থ হইতে দেখা যায় বটে, কিন্তু লক্ষণ সকল মৃত্যু হয় ও গাত্রে দাগ পড়ে না। টকা দিবাব প্রথা প্রচলনের পর বসস্কের সংক্রামকতা কম হইয়াছে । ( revaccination )–ૌસા ન કથા