পাতা:ব্যঙ্গকৌতুক - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ডেঞে পিপড়ের মন্তব্য । দেখো দেখে, পিপূড়ে দেখো ! ক্ষুদে ক্ষুদে রাঙা ब्राख्। সরু সরু সব আনাগোনা করিতেছে—ওর সব পিপৃড়ে যা’কে সংস্কৃত ভাষায় বলে পিপীলিকা। আমি হচ্চি ডেঞে, সমুচ্চ ডাইবংশসস্তৃত, ঐ পিপড়েগুলোকে দেখলে আমার অত্যন্ত হাসি আসে । হা হা হা, রকম দেখো, চল্‌চে দেখে, যেন ধুলোর সঙ্গে মিশিয়ে গেচে । আমি যখন দাড়াই তখন আমার মাথ আকাশে ঠেকে স্বৰ্য্য যদি মিছরির টুক্‌রে৷ হ’তো আমার মনে হয় আমি দাড়া বাড়িয়ে ভেঙে ভেঙে এনে আমার বাসায় জমিয়ে রাখতে পারতুম । উঃ, আমি এতো বড়ো একটা খড় এতোখানি রাস্তা টেনে এনেচি, আর ওরা দেখে কী ক’বৃচে—একটা মর ফড়িং নিয়ে তিন জনে মিলে টানাটানি ক’বৃচে ! আমাদের মধ্যে এতে ভয়ানক তফাং ! সত্যি ব’ল্চি আমার দেখতে ভারি মজা লাগে ! আমার পা দেখো আর ওদের পা দেখো—যতোদূর চেয়ে দেখি আমার পায়ের আর অন্ত দেখিনে—এতো বড়ো পা । পদ-মৰ্য্যাদ। এর চেয়ে আর কী আশা করা যেতে পারে । কিন্তু পিপড়েরা আপনাদের ক্ষুদে ক্ষুদে প৷ नि:प्रदें সম্পূর্ণ সন্তুষ্ট আছে। দেখে আশ্চৰ্য্য বোধ হয় ! হাজার হোক, পিপড়ে কি না ! ওরা একে ক্ষুদ্ৰ,তাতে আবার আমি বিস্তর উচু থেকে দেখি—এদের সবটা আমার নজরে আসে না । কিন্তু আমি আমার অতি দীর্ঘ ছ'পায়ের উপরে দাড়িয়ে কটাক্ষে দৃকপাত ক’রে আন্দাজে ওদের আগাগোড়াই বুঝে নিয়েচি। কারণ পিপড়ে এতো ক্ষুদ্র যে ওদের দেখে ফেলতে অধিকক্ষণ লাগে না। পিপড়েজাতি সম্বন্ধে আমি ডাই ভাষায় একটা কেতাব লিখবো এবং ৰক্তৃতাও দেবো।