পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/১০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ব্যবসায়ে বাঙালী ఏషి অথচ এই সমস্ত বাঙালীর ছেলেকে প্রতিপালন করিতে গিয়া আমার ১২।১৩ শত টাকা নষ্ট হইয়া গেল। বাঙালীর মধ্যে যিনি এখনো ॐशटङ ििकग्रा थांटाइन, डिनि uहे वायना कब्रॉब्र शूरी खटैनक ব্যবসায়ীর নিকট চাকুরী করিয়া একাজে অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করিয়াছিলেন। কাজেই কি ভাবে এই ব্যবসা চালাইতে হয়, তাহা তাহার জানা ছিল। অন্যান্ত যতগুলি দোকান ফেল হইল, তাহার কারণ অহুসন্ধানে বুঝিলাম, কেহ এমন সব ফাকিবাজ খরিদ্ধারকে মাল বিক্রয় করিয়াছে, যাহারা ধারে মাল লইয়া কাহাকেও টাকা দেয় না। কেহ বা ব্যবসা আরম্ভ করিয়াই, হোটেলের খাওয়া রুচিকর নয় বলিয়া পরিবার লইয়া কলিকাতায় বাসা বাধিয়াছেন। কেহ দোকান খুলিয়াই দেশের সংসার প্রতিপালনের ভার ঘাড়ে লইয়া মহাজনের টাকার সদ্ব্যবহার করিয়াছেন । কেহ আমার মত আরও ৩৪ জন এজেণ্টের মাল ধারে লইয়া, যখন ২১ হাজার টাকা পুজি হাতে আসিয়াছে, তাহ লইয়া সরিয়া পড়িয়াছেন। কেহ রাতারাতি বড়লোক হইবার আশায় জুয়াচোরের পাল্লায় পড়িয়া নোটু ডবল করিতে গিয়া আমার সৰ্ব্বনাশ করিয়াছেন।

  • াকিবাজী

কলিকাতার মত ব্যবসা-ৰহুল স্থানে ধারে মাল লইয়া মহাজনকে ফাকি দিবার অজস্র হযোগ আছে। পূর্বেই বলিয়াছি, যাহার মহাজনকে ঠকাইবার উদ্দেশ্যে ব্যবসা করে, তাহার কারবারের এমন সব অদ্ভূত নাম দেয় যে, পরে মালিক খুজিয়া বাহির করা যায় না । қ নিমতলাঘাট ট্রীটে “এস মরেন এও কোং” নামক একটি কেরোসিনের দোকান ছিল। দেখিলাম, আমার পূর্ববর্তী বা তৎকালীন ।