পাতা:মহর্ষি মনসুর - মোজাম্মেল হক.pdf/৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

মহা ম র ৫৮ করিলেন । আহা, কি অলৌকিক ক্ষমতা ! কি অমানুষিক চমৎকার কাৰ্য্য ! এই অশ্ৰুত ও অত্যাশ্চৰ্য্য ব্যাপার তপস্বীকুল শিরোভূষণ মহাত্মা মনসুর কৰ্ত্তক সমাহিত হইয়াছে, ইহা িনশ্চিত জানিয়া তাহার হৃদয়ে বিস্ময়সহ ভক্তির উদ্ৰেক হইল । অাবার এক জন পুণ্যপ্ৰাণ সাধুপুরুষকে নিকৃষ্টকৰ্ম্মা দুৰ্জ্জনদিগের সহিত একত্ৰে কারাবদ্ধ করা হইয়াছে, সুতরাং পরিণামে তন্নিমিত্ত ভক্ত বৎসল বিশ্ববিধাতার সমীপে । না জানি কত অপরাধী ও দণ্ডাহঁ হইতে হইবে, ইহা ভাবিয়া নিমেষ-মধ্যে বিষাদের কৃষ্ণ আবরণে তাহার হৃদয় আচ্ছন্ন হইল,—প্ৰফুল্ল মুখমণ্ডল মলিন মূৰ্ত্তি ধারণ করিল। তিনি কিয়ৎক্ষণ অপলকনেত্ৰে ললাট কুঞ্চিত করিয়া নীরব রহিলেন । অতঃপর নিরীহ কারাধ্যক্ষ ধীর পদবিক্ষেপে মহৰ্ষির নিকটবৰ্ত্তী হইয়া অবনতমস্তকে অভিবাদন পূৰ্ব্বক হস্তপদে চুম্বন প্ৰদান ও যথেষ্ট সন্মান প্ৰদৰ্শন করিলেন এবং বিনয়ন বচনে শত শত সাধু বাদ প্ৰদান করিয়া গদগদকণ্ঠে কহিলেন,—“হজরত ! আমরা রাজাজ্ঞানুসারে আপনার প্রতি যাদৃশ উৎপীড়ন করিয়াছি, তাহাতে আপনার সম্মুখে বাক্যব্যয় করিতে আর সাহস হয় না । তথাপি কৰ্ত্তব্যের অনুরোধে—আত্মরক্ষার জন্য ব্যাকুলভাবে একটা কথা জিজ্ঞাসা করিতে অগ্রসর হইতেছি । এ দীন রাজ কিঙ্কর, এই বন্দীশালার তত্ত্বাবধান-কাৰ্য্য এই দীনের উপর ন্যস্ত অাছে । বন্দী-সম্বন্ধে কিঞ্চিন্মাত্ৰও গোলযোগ বা বিশজলা ঘটিলে আমাকে বিপন্ন হইতে হয় । কিন্তু বৰ্ত্তমানে যেরপ ঘোর