পাতা:মুর্শিদাবাদ কাহিনী.djvu/১৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।
১৬২
১৬২
মুর্শিদাবাদ-কাহিনী

উধুয়ানালা’ অষ্টাদশ শতাব্দীর যে-মহাবিপ্লবাগ্নি বঙ্গদেশে প্রধূমিত হইতে হইতে পলাশীসমরক্ষেত্রে প্রজ্বলিত হইয়া উঠে, কয়েক বৎসর পর্যন্ত তাহা কখনও প্রধূমিত, কখনও বা ঈষজ্বলিত হইয়া অবশেষে উধুয়ানালায় মুসলমান-গৌরবকে চিরভস্মীভূত করিয়া ফেলে। উধূয়ানালা বাঙ্গলার মুসলমান-গৌরবের শ্মশানভূমি । এইখানে বাঙ্গলার শেষ স্বাধীন নবাব মীর কাসেম আপনার সর্বস্ব বলি দিয়া বঙ্গরাজ্য হইতে বিতাড়িত হইয়া, অবশেষে মনস্তাপে ফকীরি গ্রহণ করিতে বাধ্য হন । যিনি বঙ্গদেশ হইতে ইংরেজন্মক্ষমতা নিমূল করিবার জন্য মহাবিপ্লবের পুনরবতারণা করিয়াছিলেন, তিনি নিজেই অবশেষে সেই বিপ্লবে শক্তিহীন হইয়া মুঙ্গেরপ্রান্তবাহিনী জাহ্নবীজলে বাঙ্গলার স্বাধীনতা-লক্ষীকে বিসর্জন দিয়া, চিরদিনের জন্য বঙ্গরাজ্য হইতে বিদায় গ্রহণ করেন । যিনি বঙ্গরাজ্যে মুসলমান সিংহাসন অটল রাখিবার জন্য রণকৌশলে স্বীয় সৈন্যদিগকে ইউরোপীয়গণের সমকক্ষ করিয়া তুলিয়াছিলেন, ইংরেজের অমানুষী চাতুরীতে র্তাহার সেই সমস্ত দক্ষত৷ ব্যর্থ হইয়া যায় । ইংরেজের রক্তে যিনি বঙ্গভূমিকে অভিষিক্ত করিবার ইচ্ছা করিয়াছিলেন, দৈবচক্রে ৰ্তাহারই সৈন্যগণের রক্তে বাঙ্গলার প্রধান প্রধান সমরক্ষেত্র রঞ্জিত হইয়া উঠে । ইংরেজের মোহিনী মায়ায় মুগ্ধ হইয়া মীর কাসেম প্রথমতঃ তাহাদিগের জালমধ্যে আবদ্ধ হইয়া পড়েন ; অনেক চেষ্টায় সে জাল ছিন্ন করিলেও তিনি একেবারে নিস্কৃতি লাভ করিতে পারেন নাই। ইংরেজের অব্যর্থ সন্ধানে তাহার দূরপ্রসারিণী শক্তিকে চিরদিনের জন্য বিকলাঙ্গী হইতে হয় । মীর কাসেমের সমস্ত আশাভরসা উধুয়ানালায় বিনষ্ট হইয়া যায়। উধৃয়ার পর্বতশ্রেণী তাহার সৈন্যদিগকে বেষ্টন করিয়া রাখিলেও, ইংরেজের রণচতুরী তাহাদিগকে অনায়াসে ভেদ করিতে সক্ষম হইয়াছিল। যে-ইংরেজ বণিকৃদিগের চাতুরীতে ন্যায়ের অচল ও অটল হিমালয় উৎপাটিত হইয়া পড়িত, উধৃয়ার ক্ষুদ্র পাহাড়শ্রেণীর এমন কি সাধ্য ছিল যে, তাহদের গতিরোধ করিতে সমর্থ হইত ? ফলতঃ উধুয়ার সুন্দর অবস্থান পাইয়াও ইংরেজহন্তে মীর কাসেমের সৈন্যদিগকে বিধ্বস্ত হইতে হইয়াছিল । মীর কাসেমের সেনাশিবিরের সম্মুখে ও পার্শ্বে উধুয়ার পাহাড়শ্রেণী নাতু্যচ্চ মস্তক উত্তোলন করিয়া শত্রুপক্ষের গতিরোধার্থ দণ্ডায়মান ; পশ্চাদ্ভাগে বর্ষার সলিল-প্রবাহে পরিপূর্ণদেহ উধয়ানাল ফেন উদগীরণ করতে করিতে কুলু কুলু ধ্বনিতে গঙ্গাবক্ষে আত্মবিসর্জনে ব্যস্ত ; বামে আপনি জাহ্নবী বর্ষার জলপ্লাবনে স্ফীত হইয়া ভৈরব রবে পার্থরক্ষার জন্য নিযুক্ত ; দক্ষিণে আরও কতিপয় পর্বতশ্রেণী প্রাচীরবৃপে অবস্থিত। এই ১ উধয়ানাল প্রচলিত ইতিহাসে উদয়নাল বলিয়া লিখিত হয়। কিন্তু উধয়ানালাই ইহার প্রকৃত নাম । তদঞ্চলবাসী ও দেশীয় গ্রন্থকারগণ-কর্তৃক ইহা উধয়ানাল নামেই অভিহিত হইয়৷ থাকে ।