পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/১৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১২৬ রবীন্দ্র-রচনাবলী , কিয়ে নবনীল নলিনী কিয়ে উতপল জলধর, নহত সমান । কমনীয় কিশোর কুসুম অতি স্বকোমল কেবল রস নিরমাণ | অমল শশধর জিনি মুখ সুন্দর সুরঙ্গ অধর পরকাশ, ঈষৎ মধুর হাস সরসহি সম্ভাষ, রায় বসন্ত পন্থ রঙ্গিণী বিলাস ॥ ইহাতে কেবল ফুল, কেবল মধুর হাসি ও সরস সম্ভাষণ আছে, কেবল সৌন্দৰ্য্য আছে । এক শু্যামের সৌন্দর্য্য দেখিয়া জগতের সৌন্দর্য্যের রাজ্য উদঘাটিত হইতে চাহে । যমুনার নিরমল ঢলঢল ভাব ফুটিয়া ওঠে, একে একে একেকটি ফুল শু্যামের মুখের কাছে আসিয়া দাড়ায়, (কারণ সৌন্দৰ্য্য সৌন্দৰ্য্যকে কাছে ডাকিয়া আনে ) ফুলের যাহা প্রাণের ভাব সে তাহা উন্মুক্ত করিয়া দেয় । বসন্তরায় এ সৌন্দৰ্য্য মুগ্ধ-নেত্রে দেখিয়াছেন, লালসা-তৃষিত নেত্রে দেখেন নাই ! এমন, একটি কেন—রায়বসন্ত হইতে র্তাহার সমুদয় রূপবর্ণনা উদ্ধৃত করিয়া দেওয়া যায়—দেখান যায় যে, যাহা তাহার সুন্দর লাগিয়াছে, তাহাই তিনি বর্ণনা করিয়াছেন । রূপবর্ণনা ত্যাগ করা যাক— সম্ভোগ-বর্ণনা দেখা যাক। বিদ্যাপতি কেবল সম্ভোগ মাত্রই বর্ণনা করিয়াছেন, বসন্তরায় সম্ভোগের মাধুর্য্যটুকু, সম্ভোগের কবিত্বটুকু মাত্র বর্ণনা করিয়াছেন। বিদ্যাপতি-রচিত “বিগলিত চিকুর মিলিত মুখ মণ্ডল” ইত্যাদি পদটির সহিত পাঠকের বসন্তরায়-রচিত নিম্নলিখিত পদটির তুলনা করুন। বড় অপরূপ দেখিছু সজনি নয়লি কুঞ্জের মাঝে, ইন্দ্রনীল মণি কেতকে জড়িত হিয়ার উপরে সাজে ॥ কুসুম-শয়ানে মিলিত নয়ানে উলসিত অরবিন্দ, শু্যাম সোহাগিনী কোরে ঘুমায়লি চাদের উপরে চন্দ ॥ কুঞ্জ কুসুমিত সুধাকরে রঞ্জিত তাহে পিককুল গান,