পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পূরবী মুক্তি মুক্তি নানা মূতি ধরি দেখা দিতে আসে নানা জনে,— এক পস্থা নহে । পরিপূর্ণতার স্বধা নানা স্বাদে ভুবনে ভুবনে নানা শ্ৰেণতে বহে । হষ্টি মোর স্বষ্টি সাথে মেলে যেথা, সেথা পাই ছাড়া, মুক্তি যে আমারে তাই সংগীতের মাঝে দেয় সাড়া, সেথ আমি খেলা-খ্যাপা বালকের মতো লক্ষ্মীছাড়া, লক্ষ্যহীন নগ্ন নিরুদ্দেশ । সেথা মোর চির নব, সেথা মোর চিরস্তন শেষ । মাঝে মাঝে গানে মোর স্বর আসে, যে স্বরে, হে গুণী, তোমারে চিনায় । বেঁধে দিয়ে। নিজ হাতে সেই নিত্য স্বরের ফাঙ্কনী আমার বীণায় । তাহলে বুঝিব আমি ধূলি কোন ছন্দে হয় ফুল বসন্তের ইন্দ্রজালে অরণ্যেরে করিয়া ব্যাকুল ; নব নব মায়াচ্ছায় কোন নৃত্যে নিয়ত দোদুল বর্ণ বর্ণ ঋতুর দোলায় । তোমারি আপন স্থর কোন তালে তোমারে ভোলায় । যেদিন আমার গান মিলে যাবে তোমার গানের স্বরের ভঙ্গীতে মুক্তির সংগমতীর্থ পাব আমি আমারি প্রাণের আমাপন সংগীতে । th&