পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/২০২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গিীশের শাস্তভাব, কলিতে শূত্রের ভক্তি ও মুক্তি ף לל সকলে চুপ করিয়া আছেন। ঠাকুর কি বলিতেছেন যে ঈশ্বর লাভই জীবনের উদ্দেশু ? to (নারায়ণের প্রতি) তুই পাস করবিনি ? ‘ওরে পাশমুক্ত শিব, পাশবদ্ধ জীব । ঠাকুর এখনও ভাবাবস্থায় আছেন। কাছে গ্লাস করা জল ছিল, পান করিলেন। তিনি আপন আপনি বলিতেছিলেন, কই ভাবে তো জল খেয়ে ফেললুম! [ ত্রীরামকৃষ্ণ ও ত্রযুক্ত অতুল—ব্যাকুলত ] এখনও সন্ধ্যা হয় নাই। ঠাকুর গিরীশের ভ্রাতা ত্রযুক্ত অতুলের সহিত কথা কহিতেছেন। অতুল ভক্তসঙ্গে সম্মুখেই বসিয়া আছেন। একজন ব্রাহ্মণ প্রতিবেশীও বসিয়া আছেন। অতুল High courtএর উকিল । শ্রীরামকৃষ্ণ (অতুলের প্রতি )—আপনাদের এই বল, আপনার দুই করবে, সংসারও করবে, ভক্তি যাভে হয় তাও করবে। ব্রাহ্মণ প্রতিবেশী—ব্রাহ্মণ না হলে কি সিদ্ধ হয় ? শ্রীরামকৃষ্ণ-কেন ? কলিতে শূত্রের ভক্তির কথা আছে। শবরী, রুইদাস, গুহক চণ্ডাল, এ সব আছে। নারায়ণ ( সহাস্তে )—ব্রাহ্মণ, শূদ্র, সব এক। ব্রাহ্মণ—এক জন্মে কি হয় ? শ্রীরামকৃষ্ণ—র্তার দয়া হলে কি না হয় । হাজার বৎসরের অন্ধকার ঘরে আলো আনলে কি একটু একটু করে অন্ধকার চলে যায় ? একেবারে আলো হয় ? so (অতুলের প্রতি) তীব্র বৈরাগ্য চাই—যেন খাপ-খোলা তরোয়াল। সে বৈরাগ্য হলে, আত্মীয় কালসাপ মনে হয় গৃহ পাতকুয়া মনে হয়। “আর আস্তরিক ব্যাকুল হয়ে তাকে ডাকতে হয়। আন্তরিক ডাক তিনি শুনবেলই শুনবেন। সকলে চুপ করিয়া আছেন। ঠাকুর যাহা বলিলেন, এক মনে শুনিয়া সেই সকল চিস্তা করিতেছেন।