পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/২০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় পরিচ্ছেদ গ্রীরামকৃষ্ণ ষ্টার থিয়েটারে,—বৃষকেতু অভিনয় দর্শনে নরেন্দ্র প্রভৃতি সঙ্গে ঠাকুর হীরামকৃষ্ণ বৃষকেতু অভিনয় দর্শন করিবেন। বিডন ষ্ট্রীটে যেখানে পরে মনোমোহন থিয়েটার ছিল, পূর্বে সেই মঞ্চে ষ্টার-থিয়েটার অভিনয় হইত। থিয়েটারে আসিয়া বক্সে দক্ষিণাস্ত হইয়া বসিয়াছেন। মাষ্টার প্রভৃতি ভক্তেরা কাছেই বসিয়াছেন। ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ (মাষ্টারের প্রতি)—নরেজ এসেছে ? মাষ্টার–আজ্ঞে হঁ। অভিনয় হইতেছে। কর্ণ ও পদ্মাবতী করাত দুই দিকে দুইজন ধরিয়া বৃষকেতুকে বলিদান করিলেন। পদ্মাবতী কাদিতে কঁাদিতে মাংস রন্ধন করিলেন। বৃদ্ধ ব্রাহ্মণ অতিথি আনন্দ করিতে করিতে কর্ণকে বলিতেছেন, এইবার এস, আমরা একসঙ্গে বসে রান্না মাংস খাই । অভিনয়ে কর্ণ বলিতেছেন, তা আমি পারব না ; পুত্রের মাংস খেতে পারব না। একজন ভক্ত সহানুভূতি-ব্যঞ্জক অস্ফুট আৰ্ত্তনাদ করিলেন। ঠাকুরও সেই সঙ্গে হুঃখ প্রকাশ করিলেন। অভিনয় সমাপ্ত হইলে ঠাকুর রঙ্গমঞ্চের বিশ্রাম ঘরে গিয়া উপস্থিত হইলেন। গিরীশ নরেন্স প্রভৃতি ভক্তেরা বসিয়া আছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ ঘরে প্রবেশ করিয়া নরেন্দ্রের কাছে গিয়া দাড়াইলেন ও বলিলেন আমি এসেছি। [ Concert বা সানাইয়ের শব্দে ভাবাবিষ্ট ] ঠাকুর উপবেশন করিয়াছেন। এখনও ঐক্যতান বাষ্ঠের ( কনসার্ট) শব্দ শুনা যাইতেছে। ত্রীরামকৃষ্ণ ( ভক্তদের প্রতি )—এই বাজনা শুনে আমার আনন্দ হচ্ছে। সেখানে ( দক্ষিণেশ্বরে ) সানাই বাজত, আমি ভাবাবিষ্ট হয়ে যেতম ; একজন সাধু আমার অবস্থা দেখে বলত, এসব ব্ৰহ্মজ্ঞানের লক্ষণ ।