পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/২৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


X8 শ্ৰীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত—৫ম ভাগ [ ১৮৮২, ২রা এপ্রিল সেখানে ( দক্ষিণেশ্বরে ) যাবার অবসর নাই ; তাই আমিই তোমায় দেখতে এসেছি। তোমার অসুখ শুনে ডাব-চিনি মেনেছিলুম ; মাকে বললুম, মা, কেশবের যদি কিছু হয়, তা হ’লে কলিকাতায় গেলে কার সঙ্গে কথা কইব । শ্ৰীযুত প্রতাপাদি ব্ৰহ্মভক্তদের সহিত শ্রীরামকৃষ্ণ অনেক কথা কহিতেছেন। কাছে মাষ্টার বসিয়া আছেন দেখিয়া তিনি কেশবকে বলিতেছেন, ইনি কেন ওখানে ( দক্ষিণেশ্বরে ) যান না ; জিজ্ঞাসা করত গা ; এতো ইনি বলেন, ‘মাগ-ছেলেদের উপর মন নাই!” মাষ্টার সবে কিঞ্চিদধিক এক মাস ঠাকুরের কাছে নুতন যাতায়াত করিতেছেন । শেষে যাইতে কয় দিন বিলম্ব হইয়াছে, তাই ঠাকুর এইরূপ কথা বলিতেছেন। ঠাকুর বলিয়া দিয়াছেন, আসতে দেরী হ’লে আমায় পত্র দেবে। ব্ৰহ্মভক্তেরা শ্ৰীযুত সমাধ্যায়ীকে দেখাইয়া ঠাকুরকে বলিতেছেন, ইনি পণ্ডিত, বেদাদি শাস্ত্র বেশ পড়িয়াছেন । ঠাকুর বলিতেছেন—ই, এর চক্ষু দিয়া এর ভিতরটি দেখা যাচ্ছে ; যেমন সারসী দরোজার ভিতর দিয়া ঘরের ভিতরকার জিনিষ দেখা যায়। শ্ৰীযুত ত্ৰৈলোক্য গান গাইতেছেন। গান গাইতে গাইতে সন্ধ্যার বাতি জ্বালা হইল, গান চলিতে লাগিল। গান শুনিতে শুনিতে ঠাকুর হঠাৎ দণ্ডায়মান—আর মা’র নাম করিতে করিতে সমাধিস্থ। কিঞ্চিৎ প্রকৃতিস্থ হইয়। নিজেই নৃত্য করিতে করিতে গান ধরিলেন— ,সুরা পান করি না আমি সুধা খাই জয় কালী ব’লে يد মন-মাতালে মাতাল করে মদ-মাতালে মাতাল বলে । গুরুদত্ত গুড় লয়ে, প্রবৃত্তি তায় মশলা দিয়ে, জ্ঞান শুড়ীতে চোয়ায় ভাটী পান করে মোর মন-মাতালে। মূল মন্ত্র যন্ত্রভরা, শোধন করি ব’লে তারা, প্রসাদ বলে এমনু স্বরা খেলে চতুৰ্ব্বৰ্গ মেলে। প্রযুত কেশবকে ঠাকুর স্নেহপূর্ণ নয়নে দেখিতেছেন। যেন কত আপনার