পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/১৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


:२br জয়তু নেতাজী মানিতে দিবে না। তাহারা বলে, নেতাঞ্জীর পন্থা শুধুই ভুল নয় —উহা ধৰ্ম্মবিরুদ্ধ । ভুল কি ঠিক, তাহাও বড় কথা নয়, আসলে উতা হিংসাকলুষিত ; অতএব ঐ পথে ভারতের স্বাধীনতালাভ হইলেও তাত। গ্রাহ্য নহে, কারণ সেই স্বাধীনতা-রক্ষাও সংগ্রাম-সাপেক্ষ, অর্থাৎ হিংসামূলক । তাহাতে জগতের উপকার হইবে না, ইতিহাসের ধারা পরিবত্তিত হইবে না— মানব-সমাজে সংগ্রামের অবসান হইবে না, জগতে চিবশাস্তি প্রতিষ্ঠিত হইবে না । এই অতি উচ্চ ধৰ্ম্মধবজিতার জবাব দিবাব অবকাশ এখানে নাই ; পুথিবীব ইতিহাস যাহারা কিছুমাত্র অবগত আছে—স্বষ্টির নিয়ম, মানুষের জীবন, তথা পার্থিব কল্যাণঅকল্যাণ ও তদ্‌ঘটিত শাশ্বত বিধান যাহারা চিন্তা করিতে পারে, তাহারাই জানে যে, ঐ গান্ধী-ধৰ্ম্ম-নামক তত্ত্ববাদ যেমন নূতন নতে, তেমনই উহার অন্তর্গত প্রেবণ ও যুক্তি তুই ই একরূপ তুরারোগ্য ব্যাfধর লক্ষণ । এ ব্যাধি ভারতবর্ষে আর এ পুরাতন, এবং উহারই বিস্তাব ও প্রচ্ছন্ন প্রকোপে ভারতের আঞ্জ এই মুম্যু অবস্থা । সে আলোচনা এখানে অবাস্তুর । আমি কেবল ইহাক্ট বলিতেছি যে, ভারতের স্বাধীনতা-সংগ্রাম যদি মুখ্যত একটি বাজনৈতিক আন্দোলন হয়, অর্থাৎ বিরুদ্ধ রাজশক্তির হস্ত হইতে স্বাধীনতা-উদ্ধারের চেষ্ট হয়, তবে সেক্ট সংগ্রামে কংগ্রেস যে পন্থ অবলম্বন করিয়াছে তাহাতে সত্যকার নেতৃত্বগুণের কোন পরিচয় আছে ? জনগণকে ভক্তিবিমূঢ় করিয়া একরূপ একতাবদ্ধ করা—তাহাদিগকে অবোধ অজ্ঞ শিশুর মত