পাতা:ব্যঙ্গকৌতুক - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিনিপয়সায় ভোজ 8(? ন ? আচ্ছা, তবে দাও মুড়িই দাও ! ( আহার ) ওহে চন্দ্র, কী বলবো, ক্ষুধার চোটে এই বাসি মুড়ি যেন সুধা ব’লে বোধ হ’চ্চে ! অনেক নিমন্ত্রণ খেয়েচি কিন্তু এমন সুখ পাইনি ! চন্দ্র, তুমিই সুধাকর বটে কিন্তু আজকে কলঙ্কের ভাগটাই কিছু বেশি দেখা গেল ! ডাবও একটা এনেচে দেখচি, এর জন্যেও স্বতন্ত্র কিছু দিতে হবে না কি ? হবে না ? শরীরে দয়ামায়া কিছু আছে বোধ হ’চ্চে, এখন যদি একটি গাড়ি ডেকে দাও তে আস্তে আস্তে বিদায় হই । গাড়ি এখানে পাওয়া যায় না ? তবে তে বড়ো বিপদে ফেল্পে ? আমি এখন না খেয়ে কাহিল শরীরে দেড়ক্রোশ রাস্ত হার্টুতে পারবে৷ না ; যখন সম্মুখে আহারের আশা ছিল তখন পেরেছিলুম। কী ক’রবো । বেরিয়ে পড়া যাক ! কী সৰ্ব্বনাশ! এই সময়ে আবার হরিবাবুর ওখানে যেতে হবে। চন্দ্র, তুমি আজ আমার বিস্তর উপকার করেচে, এখন আর কিছু করতে হবে না, এই ভদ্রলোকের ছেলেটিকে বুঝিয়ে দাও আমি উদয় বাবু নই, আমি আহিরিটোলার অক্ষয় বাবু। - ও তোমার কথা বিশ্বাস করবে না ? সেজন্যে ওকে আমি বেশি দোষ দিতে পারিনে, বোধ হয় তোমাকে ও অনেক দিন থেকে চেনে ! যা হোক আর ঝগড়া করবার সামর্থ্য নেই, আস্তে আস্তে হরিবাবুর ওখানেই যাওয়৷ যাক। বাপু, যে রকম অবস্থা দেখচো পথে যদি একটা কিছু ঘটে, দাহ করবার ব্যয়টা তোমার স্বন্ধে পড়বে—আগে থাকতে ব’লে রাখলুম। চন্দ্র, তুমি আবার হাত বাড়াও কেন হে? তোমাদের কল্যাণে যে রকম সস্তায় আজ নেমস্তন্ন খেয়ে গেলুম বহুকাল আমার আর ক্ষিদে থাকবে না! আরো কী চাও? ও! বকশিষ, সেটা চুকিয়ে দেওয়াই ভালো ! যখন এতোই