পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সোনার তরী যে রাগিণী সদা গগন ছাপিয়া হোমশিখণসম উঠিছে কাপিয়া, অনাদি অসীমে পড়িছে বা পিয়া, বিশ্বতন্ত্রী হতে । ষে রাগিণী চিরজন্ম ধরিয়া চিত্তকুহরে উঠে কুহরিয়া অশ্রীহাসিতে জীবন ভরিয়া ছুটে সহস্ৰ স্রোতে । কে আছে কোথায়, কে আসে, কে যায়, নিমেষে প্রকাশে, নিমেষে মিলায়, বালুকার পরে কালের বেলায় ছায়া-আলোকের খেলা । জগতের যত রাজামহারাজ, কাল ছিল যারা কোথা তারা আগজ, সকালে ফুটিছে স্থখদুখলাজ, টুটিছে সন্ধ্যাবেলা । শুধু তার মাঝে ধ্বনিতেছে স্বর বিপুল বৃহৎ গভীর মধুর, চিরদিন তাহে আছে ভরপুর, মগন গগনতল । যে-জন শুনেছে সে অনাদি ধ্বনি ভাসায়ে দিয়েছে হৃদয়তরণী,— জানে না আপনা, জানে না ধরণী— সংসার কোলাহল । সে-জন পাগল, পরান বিকল, . ভবকুল হতে Tিছড়িয়া শিকল কেমনে এসেছে ছাড়িয়া সকল ঠেকেছে চরণে তব । তোমার অমল কমলগন্ধ হৃদয়ে ঢালিছে মহা আনন্দ, Σ Σ δ'